ঢাকা, রোববার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ০৮ আশ্বিন ১৪২৫ | ১২ মহররম ১৪৪০

রিজার্ভ চুরি করা হ্যাকারের নাম সামনে এলো যেভাবে!

রিজার্ভ চুরি করা হ্যাকারের নাম সামনে এলো যেভাবে!

নিউজডেস্ক২৪: বিশ্বে সাম্প্রতিক সময়ে আলোচিত বেশ কয়েকটি সাইবার হামলার ঘটনায় উত্তর কোরিয়ার নাগরিক পার্ক জিন হিয়ককে অভিযুক্ত করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (এফবিআই)।

বৃহস্পতিবার আনুষ্ঠানিকভাবে এই হ্যাকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে এফবিআই। একই সঙ্গে তার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা ও গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ বলছে, অভিযুক্ত পার্ক জিন হিয়ক উত্তর কোরিয়ার সরকারের হয়ে কাজ করতেন। ২০১৬ সালে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে বিপুল পরিমাণ অর্থ লুটপাটের ঘটনায়ও তিনি জড়িত ছিলেন বলে জানা গেছে।

কীভাবে সামনে এল এই হ্যাকারের নাম?

মার্কিন গণমাধ্যম ব্লুমবার্গ বলছে, তাকে খুঁজে পেতে মার্কিন তদন্তকারীদের সহায়তা করেছে জিমেইলের মতো বিনামূল্যের ই-মেইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান। জানা যায়, ২০১৪ সালে সনি পিকচার্স এন্টারটেইনমেন্টে সাইবার হামলা এবং ২০১৭ সালে বিশ্বব্যাপী ‘ওয়ান্নাক্রাই’ র‍্যানসমওয়্যার হামলায়ও জড়িত ছিলেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগের এক অভিযোগপত্রে বৃহস্পতিবার বলা হয়, ইমেইল নজরদারি থেকে জানা গেছে, এসব হামলার নেপথ্যে ছিল ‘কোরিয়ান এক্সপো জয়েন্ট ভেঞ্চার’ নামে একটি প্রতিষ্ঠান।

সেখানে উত্তর কোরিয়ার নাগরিক পার্ক জিন হিয়কের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। তিনি কোরিয়ান এক্সপো জয়েন্ট ভেঞ্চারের হয়ে কাজ করেন এবং হ্যাকিং চক্রান্তের মূলহোতা লাজারুস গ্রুপের প্রধান।

একটি সিভি এবং তদন্তের সূত্র

ব্লুমবার্গ জানিয়েছে, কোরিয়ান এক্সপো জয়েন্ট ভেঞ্চার নামের ওই প্রতিষ্ঠানটির রয়েছে গতানুগতিক ব্যবসায়িক কার্যক্রমের পাশাপাশি হ্যাকিং ব্যবসাও। গ্রাহকদের সফটওয়্যার এবং ইনফেরমেশন টেকনোলজি বিষয়ক সেবা দিয়ে থাকে প্রতিষ্ঠানটি। মার্কিন বিচার বিভাগের অভিযোগপত্রে বলা হয়, নৈমিত্তিক কাজের জন্য ওই প্রতিষ্ঠানের একজন জ্যেষ্ঠ্য কর্মকর্তা অন্য একটি প্রতিষ্ঠানে পার্কের সিভি এবং ছবি পাঠান। মূলতঃ এই সিভির মাধ্যমেই তদন্তকারীরা প্রাথমিক তদন্তের সূত্র পেয়ে যান।

সার্চ ওয়ারেন্টের পরিপ্রেক্ষিতে তদন্তকারীরা প্রায় হাজারখানেক ইমেইল এবং শ’খানেক সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের অ্যাকাউন্টে প্রবেশ করেন তারা।

এই কাজে তাদের সহায়তা করে গুগলের মালিকানাধীন বিখ্যাত ইমেইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান গুগল।

জানা যায়, অভিযুক্ত প্রতিষ্ঠানটি চীন, উত্তর কোরিয়া এবং অন্যান্য কয়েকটি দেশে যৌথভাবে ব্যবসা পরিচালনা করে অভিযুক্ত প্রতিষ্ঠানটি।