পাহাড়ের বুকে দাঁড়িয়ে আছে ৫৭২ বছরের পুরনো মাটির মসজিদ!

পাহাড়ের বুকে দাঁড়িয়ে আছে ৫৭২ বছরের পুরনো মাটির মসজিদ!

নিউজডেস্ক২৪: আরব আমিরাতের ফুজাইরায় ৫৭২ বছরেরও পুরনো মাটির তৈরি আল বিদয়াহ মসজিদ। এ মসজিদটি আমিরাতের প্রাচীনুম ঐতিহ্যবাহী নিদর্শনের মধ্যে অন্যতম একটি। প্রতিদিন পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়া ছাড়াও মসজিদটি উন্মুক্ত থাকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে আসা পর্যটকদের জন্য।

জানা গেছে, স্থানীয় আরবরাও সঠিক তথ্য জানেন না এ মসজিদটির নির্মাণকাল সম্পর্কে। তবে অস্ট্রেলিয়ার সিডনি বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগিতায় ফুজাইরাহ প্রত্নতাত্ত্বিক কেন্দ্র দ্বারা ১৯৯৭-৯৮ সালের দিকে মসজিদটির নির্মাণকাল নিয়ে তদন্ত করা হয়। সে তদন্ত অনুযায়ী ১৪৪৬ সালে মসজিদটি নির্মাণ করা হয়েছিল বলে ধারণা করা হয়। যা মসজিদটির পাশে ফুজাইরাহ প্রদেশ গভর্নমেন্টের পক্ষ থেকে মসজিদের তথ্য সম্পর্কে লাগানো সাইনবোর্ডে উল্লেখ রয়েছে।

কথিত আছে, ইসলাম ধর্ম প্রচারের জন্য আগত কিছু সাহাবী হাজার বছর আগে পাহাড় কেটে এ মসজিদ তৈরি করেন। ৫৩ বর্গমিটার (৫৭০ বর্গফুট) আয়তনের এ মসজিদটির পুরোটাই মাটি ও পাথরের তৈরি। চারপাশের দেয়াল ছাড়াও একটি মাত্র মাটির পিলারের উপর ভর করে আছে ৫শ’৭২ বছরেরও অধিক পুরনো প্রাচীনতম এ মসজিদটি।

মসজিদের ছাদে চারটি গম্বুজ, ভেতরে নামাজের জন্য ছোট জায়গা এবং ছোট মেহরাব ও মিম্বার রয়েছে। মসজিদের সামনে একটি পানির ক‚প ও পেছনে দু’টি দুর্গ রয়েছে। মসজিদের ভেতরে দেয়ালে রয়েছে কারুশিল্পের কিছু নিশানা ও কুরআন মাজীদ রাখার বক্স।

তবে দুর্গ দু’টি সম্পর্কে রয়েছে নানা মতপার্থক্য। কেউ বলেছেন, আজান দেয়ার জন্য তখন দুর্গ দু’টি তৈরি করা হয়েছিল। আবার কেউ বলেছেন, সাহাবীরা যুদ্ধের সময় নিরাপত্তার জন্য তৈরি করেছিলেন এ দুর্গ দু’টি। পুরনো এসব নিদর্শন ছাড়াও ২০০৩ সালের মার্চে দুবাই সিটি কর্পোরেশনের নিজস্ব অর্থায়নে মসজিদটির সৌন্দর্য বর্ধনে এবং পর্যটকদের সুবিধার্থে দুর্গে যাতায়াতের জন্য পাথরের সিঁড়ি, সীমানা প্রাচীরসহ মসজিদের পাশে তৈরি করা হয়েছে একটি বাগানও। প্রাচীন ও সুনিপুন সৌন্দর্যমন্ডিত মাটির এই মসজিদটি এক নজর দেখতে প্রতিদিন বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে আসা অসংখ্য পর্যটকের ভিড়ে থাকে মুখরিত।