1295 সকালের যেসব অভ্যাস ওজন কমাতে সাহায্য করবে

সোমবার, ৮ আগস্ট ২০২২ । ২৪ শ্রাবণ ১৪২৯ । ৯ মহররম ১৪৪৪

সকালের যেসব অভ্যাস ওজন কমাতে সাহায্য করবে

সকালের যেসব অভ্যাস ওজন কমাতে সাহায্য করবে

নিউজডেস্ক২৪: সকালে উঠে আমরা যেসব কাজ করি তার উপর দেহের ওজন নির্ভর করে। তাই কিছু অভ্যাস আয়ত্ত করা প্রয়োজন যাতে করে আপনার ওজন কমবে। কারণ বেশি ওজনের দেহে অনেক সমস্যা ও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। আজ আমরা, সকালে ঘুম থেকে উঠে এমন কিছু অভ্যাস গড়ে তোলার কথা বলবো যা আপনার ওজন কমাতে ভূমিকা রাখবে।

ঘুম থেকে উঠেই ওজন মাপা

সকালে ঘুম থেকে উঠার পরপরই ওজন মাপার অভ্যাস করুন। এতে করে আপনি সবসময় আপনার দৈহিক ওজন সম্পর্কে অবহিত থাকবেন। বাড়তি ওজন হলে খাবারেও টানতে পারবেন লাগাম।

খালি পেটে ১ বা ২ গ্লাস পান করুন

সকালের নাস্তার আগে খালি পেটে ১ বা ২ গ্লাস পানি পান করুন। যা আপনার ওজন কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। কারণ পানিতে কোনো ক্যালোরি নেই। সেইসঙ্গে বেশি পানি খেলে পেটেও জায়গা কমে যায়। আপনি বেশি খেতে পারবেন না। 

নাস্তার আগে ব্যায়াম

সুস্বাস্থ্যের সবচেয়ে বয়াড় হাতিয়ার হচ্ছে প্রতিদিন সকালে ব্যায়াম করা। এতে শরীর ও মন দুটোই চাঙ্গা থাকে। সকালে খালি পেতে ব্যায়াম করলে সবচেয়ে বেশি উপকার পাওয়া যায়। হজম শক্তি অনেক বৃদ্ধি পায়। খাদ্য ভালোভাবে পরিপাক হয়। তাছাড়া খালি পেটের ব্যায়াম করে ঘাম ঝড়লে বেশি মেদ কমে।

উচ্চ আমিষযুক্ত নাস্তা

সকালের নাস্তায় সবসময় উচ্চ আমিষযুক্ত খাবার খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন। কারণ উচ্চ আমিষযুক্ত খাবার পরিপাকে শরীরে বাড়তি শক্তি লাগে। শরীরের শক্তি খরচ হলেই কমবে মেদ। তাই সকালের নাস্তায় ডিম ও মাংসযুক্ত খাবার খাওয়ার চেষ্টা করুন।

দিনে কি কি খাবেন তার পরিকল্পনা করুন

প্রতিবেলায় কি খাবেন তার একটি তালিকা সকালেই করে ফেলুন। এতে করে কম ক্যালোরির খাদ্য নির্বাচনে সহজ হবে। 

সূর্যের আলো নিন

মানবদেহের জন্য সূর্যের আলো অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কিছু গবেষণা বলছে, সকালে সূর্যের আলো দেহে পড়লে কিছু চর্বি টেনে নেয়। দিনের অন্য সময়ের সূর্যের আলো যা করতে পারেনা।

কাপ, চামুচে মেপে খাবার প্রস্তুত

খাবার প্রস্তুতের সময় কাপ ও চামুচের ব্যবহার শুরু করুন। এতে করে আপনি বুঝতে পারবেন কি পরিমাণ ক্যালোরি আপনি প্রতিনিয়ংরহন করছেন।

উপভোগ করে খাওয়ার অভ্যাস করুন

প্রযুক্তির কল্যাণে আমরা এখন টিভি দেখে কিংবা মোবাইল টিপে নাস্তা করি। কিন্তু এই অভ্যাস ছেড়ে যা খাচ্ছেন না তা উপভোগ করুন। খাবারের ঘ্রাণ দিন। এই অভ্যাস আপনাকে কম খেতে সাহায্য করবে।

ছোট জুসের গ্লাস

সকালের নাস্তায় ফলের জুস সবচেয়ে উপকারী উপাদান। এতে শরীররের টক্সিসিটি কমে যায়। পরিপাকেও সাহায্য করে। সাধারণত জুসের গ্লাসগুলো একটু বড় হয়। চেষ্টা করুন ছোট গ্লাসে করে জুস খেতে। জুস কম করে খেলে আপনার দেহে চিনিও কম প্রবেশ করবে। যা দেহের জন্য উপকারী।

সকালের নাস্তায় ঝাল

মরিচের ঝাল মেদ কমাতে সক্ষম। এতে থাকা ক্যাপসাইসিনোয়েডস মাদ কময়। পাশাপাশি পরিপাক আরও ভালো করে। তাই সকালে কজাল খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন।

পর্যাপ্ত ঘুম

কম ঘুম বদ হজমের অন্যতম কারণ। বদ হজমের কারণে শরীরে জমে বাড়তি মেদ। তাই সুস্থ থাকতে হলে দরকার পর্যাপ্ত ঘুম।