শাস্তিস্বরূপ টানা ১০ দিন শোনানো হলো ব্যান্ড সংগীত!

শাস্তিস্বরূপ টানা ১০ দিন শোনানো হলো ব্যান্ড সংগীত!

নিউজডেস্ক২৪: সংগীতের একটি অবিশ্বাস্য ক্ষমতা রয়েছে। একটি ভালো গান মুহূর্তের মধ্যেই শ্রোতার বিষাদে ভরা মন আনন্দের জোয়ারে ভাসিয়ে দিতে পারে। তাকে করতে পারে তৃপ্ত। কিন্তু গান কখনো শাস্তির কাজে ব্যবহৃত হয় বলে শুনেছেন? অবিশ্বাস্য হলেও এমনই ঘটনা ঘটেছে মেক্সিকোর একটি কারাগারে। সেখানে একজন বন্দিকে শাস্তি হিসেবে টানা দশদিন গান শোনানো হয়েছে।

চলতি বছরের এপ্রিলে হত্যা মামলার দায়ে আটক করা হয় ভেরাক্রুজ স্টেটের অ্যাটর্নি জেনারেলের কার্যালয়ের সাবেক পরিচালক গিলবার্তো আগুয়েরো গার্জাকে। তার বিরুদ্ধে ২০১৬ সালের কয়েকটি হত্যাকাণ্ডের আলামত গায়েব করার অভিযোগ আনা হয়। কিন্তু প্রথম থেকেই গিলবার্তো এই অভিযোগ আস্বীকার করে আইনি লড়াইয়ের সিদ্ধান্ত নেন। ফলে তাকে কারাদণ্ড না দিয়ে পুলিশি হেফাজতে রাখা হয়।

গিলবার্তোর আইনজীবী রিয়েস পিরেলটা অভিযোগ করেছেন, পুলিশি হেফাজতে থাকার সময় তার মক্কেলের কারাকক্ষের সামনে টানা দশদিন উচ্চ শব্দে কলম্বিয়ান ব্যান্ড সংগীতশিল্পী মালুমার গান বাজানো হয়। কারণ তার মক্কেল অভিযোগপত্রে সম্মতি দিতে অস্বীকার করেছিল।

টানা দশদিন গান বাজানোর পর গিলবার্তোকে অভিযোগপত্রে স্বাক্ষর করতে বলা হয় নতুবা আবার বাজানোর হুমকি দেওয়া হয়। লোকগানের ভক্ত গিলবার্তো দশদিন ব্যান্ড সংগীত শুনে মানসিকভাবে এতটাই ক্লান্ত হয়ে পড়েছিলেন যে সঙ্গে সঙ্গে অভিযোগপত্রে স্বাক্ষর করে দেন। বর্তমানে গিলবার্তো কারাগারে রয়েছেন। তবে তার আইনজীবী মানবাধিকার লঙ্ঘনের মামলা করবেন বলে পুলিশকে হুমকি দিয়েছেন।