২৫ বছরের আগে বিয়ে না করলে শাস্তি!

২৫ বছরের আগে বিয়ে না করলে শাস্তি!

নিউজডেস্ক২৪: বিয়ের আদর্শ বয়স কত? এই প্রশ্ন অনেকের মনেই রয়েছে। কেউ ২০ বছরে বিয়ে করেন তো কারও পার হয়ে যায় ৩০। বয়স ২৫ হওয়ার পরেও বিয়ে করেননি, রয়েছেন সিঙ্গেল অথবা একাকী- ডেনমার্কে এমন সব লোকদের জন্য রয়েছে অদ্ভুত এক প্রথা। সেখানে এমন ব্যক্তিদের পেতে হয় শাস্তি। সুখের কথা, সে শাস্তি দেন আত্মীয়-স্বজনরাই।

আত্মীয়স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবরা অবিবাহিতদের ২৫ তম জন্মদিনে দারুচিনির গুঁড়া মাখিয়ে দেন তার সারা গায়ে। শুধু তাই নয়, এই গুঁড়ার সঙ্গে পানি মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করেও মাখানো হয় অবিবাহিতদের গায়ে।

কথিত আছে, বহু শতক আগে ডেনমার্কে এমন প্রথার শুরুটা হয়েছিল। মশলা বিক্রির জন্য যেসব সেলসম্যান ঘুরে বেড়াতেন চারপাশে, তাদের পক্ষে ঘর-সংসার পাতা প্রায় অসম্ভব হয়ে উঠতো। এমন অবিবাহিত সেলসম্যানদের ‘পেপার ডুডস’ বলা হতো। অবিবাহিতাদের ‘পেপার মেইডেন’ নামে ডাকা হতো। আর এ রীতির মাধ্যমে অবিবাহিত ব্যক্তিকে মনে করিয়ে দেয়া হয় যে, তোমার বিয়ের বয়স হয়েছে।

তার মানে এই নয় যে, ডেনমার্কের সবাই ২৫ বছর বয়সেই বিয়ে করে থাকেন। জানা যায়, দেশটিতে পুরুষদের বিয়ের বয়স গড়ে সাড়ে ৩৪। অন্যদিকে নারীরা গড়ে ৩২ বছর বয়সে বিয়ে করে থাকেন। তবে ২৫ বছরের মধ্যে বিয়ে না করলে শাস্তি দেওয়ার যে রীতি সেটা নাকি মজা করার জন্যই করা হয়।

এদিকে, ইন্সটিটিউট অব ফ্যামিলি স্টাডিজ নামে একটি প্রতিষ্ঠানের গবেষণায় বলা হয়েছে, কিশোর বয়স পার করে ২০ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে বিয়ে করলে তালাকের আশংকা অনেক কম। আবার ৩০ বছরের পর থেকে ৪০ বছর বয়সের মধ্যে বিয়ে করলে এই আশংকা অনেক বেড়ে যায়।