অশ্লীলতার অভিযোগে বাংলাদেশে বন্ধ হচ্ছে টিকটক!

অশ্লীলতার অভিযোগে বাংলাদেশে বন্ধ হচ্ছে টিকটক!

নিউজডেস্ক২৪: ইন্টারনেটের আপত্তিকর আসক্তি থেকে নতুন প্রজন্মকে বের করে আনতে ইতিমধ্যে অশ্লীল কনটেন্ট, জুয়া বা বিপথগামী সাইট বন্ধ করে দেয়ার কাজ শুরু করেছে সরকার। এরই ধারাবাহিকতায় এবার দেশীয় সংস্কৃতি রক্ষায় টিকটক বন্ধের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

বিভিন্ন সিনেমার জনপ্রিয় গানের একাংশ, ঠোঁট মিলিয়ে ভিডিওতে কোনো খারাপ উক্তি তৈরির এই অ্যাপ নিয়ে ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি দেশে সমালোচনা ঝড় উঠেছে।

রোববার (১৭ ফেব্রুয়ারি) ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, আমরা ইতোমধ্যে পাঁচ হাজারের ওপরে পর্নো সাইট বন্ধ করেছি। বেটিং সাইট (জুয়া খেলার ওয়েবসাইট) বন্ধ করেছি ৫শ ওপরে। এছাড়াও কিছু ব্যক্তি আছেন যারা নিজেরা পর্নো উৎপাদন করেন এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ এ ধরনের বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে শেয়ার করেন। আমরা সেগুলোও নজরদাড়িতে রাখছি।

টিকটক বন্ধ করার বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, এগুলো তো অ্যাপস, তাই এগুলো বন্ধ করার সঙ্গে কিছু প্রযুক্তি প্রয়োগের বিষয় আছে। এসব প্রযুক্তি ডেভেলপমেন্ট অবস্থায় আছে। আমি এক বাক্যে বলতে পারি যে, টিকটক তো বটেই, আমাদের সমাজ-রাষ্ট্র ও জনগণের সঙ্গে সংগতিপূর্ণ না এমন কোনো কিছুই থাকবে না।

তিনি বলেন, আমি ইন্টারনেটকে নিরাপদ করতে চাই। আমার দেশ ইউরোপ না আমেরিকা না আমার দেশে বাংলাদেশ। তাই এ দেশের মানুষ, সমাজ, সাহিত্য, সংস্কৃতি সঙ্গে যায় না এমন কোনো কিছুকেই আমি রাখতে চাই না।

এসব সাইট বন্ধ করলে আবার খোলা হয়, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, খোলা হলে বন্ধ করে দেব। যতবার খোলা হবে ততবার বন্ধ করে দেব। মানুষের জীবন ও মান ও দেশের জন্য ক্ষতিকর এসব সাইট বন্ধে কতটুকু সফল হব জানি না। তবে আমি আমার সর্বোচ্চ শক্তি দিয়ে এই দায়িত্ব পালন করে যাব। আমি আমার দেশ, মাটি ও মাকে বাঁচাতে চাই।