অনলাইনে কিনলেন বাড়ি, পেলেন এক ফালি ঘাস!

অনলাইনে কিনলেন বাড়ি, পেলেন এক ফালি ঘাস!

নিউজডেস্ক২৪: যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের কার্ভাইল হোলনেস নামে এক ব্যক্তি অনলাইনে ছবি দেখে বাড়ি কেনার অর্ডার দিয়েছিলেন। দাম হিসেবে নয় হাজার এক শ’ ডলার শোধ করেন তিনি। বাংলাদেশি মুদ্রায় এর মূল্য প্রায় ৭ লাখ ৬৯ হাজার টাকা। সস্তায় বিশাল এক বাড়ির মালিক হয়ে গেছেন ভেবে খুশিতে আত্মহারা হয়ে ওঠেন তিনি। 

তবে ভুল ভাঙতে খুব একটা সময় লাগেনি। বাড়ি বুঝে নেয়ার সময়ই মাথায় হাত পড়ে তার। দেখেন, ছবিতে দেখানো বাড়ি নয়, এর সামনে থাকা এক ফুট চওড়া জমি কিনেছেন তিনি।

ফ্লোরিডার স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সান-সেন্টিনেল এ প্রতারণার তথ্য জানিয়েছে। প্রতারিত কার্ভাইল হোলনেস সংবাদমাধ্যমকে বিষয়টি জানিয়েছেন।

কার্ভাইল হোলনেস জানান, অনলাইনে একটি নিলামে তিনি অংশ নিয়েছিলেন। তিনি ভেবেছিলেন, বাড়ি কিনেছেন। আসলে তা নয়, বিক্রি হয়েছে ছবিতে দেখানো বাড়ির সামনের অংশের এক ফুট চওড়া ও ১০০ ফুট লম্বা এক টুকরো জমি। ওই ব্যক্তি নিলামে নয় হাজার ডলারের বেশি পরিশোধ করেন। তবে জমিটুকুর বাস্তব দাম মাত্র ৫০ ডলারের (প্রায় ৪ হাজার ২০০ টাকা) মতো।

বিষয়টি নিয়ে ভুক্তভোগী কার্ভাইল প্রতারণার অভিযোগ তুললেও ফ্লোরিডা কর্তৃপক্ষ স্পষ্ট জানিয়েছে, তাকে এ দুর্দশা থেকে বাঁচানোর কোনো আইনি ব্যবস্থা অবশিষ্ট নেই। তিনি চুক্তির ফাঁদে পড়ে গেছেন।

কার্ভাইল হোলনেস সান-সেন্টিনেলকে বলেন, বাড়ির ছবিটি যেভাবে দেখানো হয়েছে, তাতে মনে হয়েছে, বাড়িই বিক্রি হচ্ছে। কোনভাবেই বোঝার উপায় নেই যে, বাড়ি নয়, নিলাম হচ্ছে সামনের ছোট্ট জমির। তিনি বলেন, এটা প্রতারণা। তারা ইচ্ছা করলেই ছবিতে বোঝাতে পারতো বাড়ি নয়, নিলাম হচ্ছে সামনের ওই জমির টুকরো।

এদিকে মূল্যনির্ধারণী ওয়েবসাইট ও কাউন্টির ট্যাক্স ওয়েবসাইটেও জমিটুকুর নামমাত্র দামের কথা উল্লেখ আছে বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইল।

এ ঘটনার পর কাউন্টি কর্তৃপক্ষ ক্রেতাদের আরো বেশি সতর্ক হওয়ার পরামর্শ দিয়েছে। অনলাইনে কিছু কিনতে হলে বিজ্ঞাপনের ওপর থেকে নিচ পর্যন্ত ভালোভাবে দেখে শর্তগুলো পড়ে বুঝেশুনে কেনার আহ্বান জানিয়েছেন তারা।