নেপালে তীব্র বৃষ্টিতে নিহত ৬০

নেপালে তীব্র বৃষ্টিতে নিহত ৬০

নিউজডেস্ক২৪: গত তিনদিন মুষলধারে বৃষ্টির জেরে হরপা বান এবং ধস কবলিত নেপালে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৬০। আহতের সংখ্যা ৩৮ ছাড়িয়েছে বলে জানিয়েছে দেশের অভ্যন্তরীণ মন্ত্রণালয়। নিখোঁজ ৩৫ জনের বেশি।

দেশটির প্রশাসন সূত্রে খবর, কমপক্ষে ১০,৩৮৫টি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মধ্যে এখনও পর্যন্ত মোট ১,১০৪ জনকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। এর মধ্যে শুধুমাত্র কাঠমান্ডু থেকেই উদ্ধার হয়েছে ১৮৫। মোট ২৭,৩৮০ জন দেশের বিভিন্ন প্রান্তে উদ্ধারকাজ চালিয়ে যাচ্ছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

বৃহস্পতিবার থেকে টানা বৃষ্টি চলছে উপত্যকা এবং সমতল মিলিয়ে নেপালের মোট ২৫টি জেলায়। তৈরি হয়েছে বন্যা পরিস্থিতি। ধ্বংস হয়ে গিয়েছে বহু বাড়ি। ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তাঘাট এবং বেশ কয়েকটি ব্রিজ।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, বিভিন্ন এলাকায় ডুবে গিয়েছে ঘরবাড়ি। শুধু জলের উপর জেগে রয়েছে বাড়ির চাল। অনেক জায়গায় সাঁতরে মাথায় করে জিনিসপত্র নিয়ে নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে এগিয়ে চলেছেন বাসিন্দারা।

দেশটির আবহাওয়া দফতর জানায়, অন্তত আগামী কয়েক দিনের মধ্যে বৃষ্টি সম্পূর্ণ বন্ধ হওয়ার সম্ভাবনা নেই। ইতিমধ্যেই বাগমতী, কমলা এবং কোশী নদী এবং বেশ কয়েকটি শাখা-নদীর পানি বিপদসীমা ছাড়িয়েছে। সতর্কতা জারি করা হয়েছে নদীগুলির পার্শ্ববর্তী এলাকার বাসিন্দাদের জন্য।

শনিবার রাতে ছয় ঘণ্টার জন্য ভারত-নেপাল সীমান্তের কোশী ব্যারেজের ৫৬টি স্লুইস গেট খুলে মোট ৩৭১,০০০ কিউসেক পানি বার করা হয়েছে যা গত ১৫ বছরের রেকর্ড ছাপিয়ে গিয়েছে বলে জানান এক কর্মকর্তা।

মৌসুমি বৃষ্টির জেরে এই পরিস্থিতি আসলে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রতিফলন বলেই জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। গত কয়েক বছর ধরে নেপালে খুব কম সময়ে অনেক বেশি পরিমাণ বৃষ্টিপাত হচ্ছে এবং এই অস্বাভাবিকতাই আস্তে আস্তে ‘স্বাভাবিক’ হয়ে উঠছে বলে আক্ষেপ তাদের।