আগস্টে কমেছে মূল্যস্ফীতি

আগস্টে কমেছে মূল্যস্ফীতি

নিউজডেস্ক২৪: সার্বিকভাবে আগস্টে মূল্যস্ফীতি কমেছে। পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে আগস্টে মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৪৯ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৬২ শতাংশ। খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ২৭ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৪২ শতাংশ। খাদ্য বহির্ভূত পণ্যেও মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৮২ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৯৪ শতাংশ।

আজ (মঙ্গলবার) রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক পরবর্তী ব্রিফিং এ পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এসব তথ্য প্রকাশ করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা সচিব নুরুল আমিন এবং বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর মহাপরিচালক কৃষ্ণা গায়েন।

মূল্যস্ফীতি কমার কারণ হিসেবে সাংবাদিকের প্রশ্নের জাবাবে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘বৃষ্টি ও বন্যার পর পণ্য পরিবহন স্বাভাবিক হওয়ায় মূল্যস্ফীতি কমেছে।  তাছাড়া ঈদ শেষ হয়ে বাজারের উপর চাপ কমাও একটি কারণ বলে জানান তিনি।

গ্রামে সার্বিকভাবে পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৩৪ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৪৯ শতাংশ। খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৩৮ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৬০ শতাংশ। খাদ্য বহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ২৫ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ২৭ শতাংশ।

শহরে সার্বিক মূল্যস্ফীতি পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৭৫ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৮৮ শতাংশ। খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক শূন্য ২ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক শূন্য ৩ শতাংশ। এছাড়া খাদ্য বহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৬ দশমিক ৬০ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৬ দশমিক ৮৪ শতাংশ।