জয় পেতে দ.আফ্রিকার প্রয়োজন ৩৮৪ রান

জয় পেতে দ.আফ্রিকার প্রয়োজন ৩৮৪ রান

নিউজডেস্ক২৪: বিশাখাপত্তমে সিরিজের প্রথম টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার সামনে ৩৯৪ রানের পাহাড়সম রানের লক্ষ্য দাঁড় করিয়ে দিয়েছে ভারত। লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ১ উইকেটে ১১ রান নিয়ে চতু্র্থ দিন শেষ করেছে প্রোটিয়ারা। জয়ের জন্য সফরকারীদের দরকার আরও ৩৮৪ রান। জয় পেতে স্বাগতিকদের দরকার ৯ উইকেট।

শনিবার (৫ অক্টোবর) টেস্টের চতুর্থ দিনে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রথম ইনিংস থামে ৪৩১ রানে। ৭৪ রানের লিড নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিং শুরু করেছিল ভারত। লাঞ্চ পর্যন্ত ভারতের এক উইকেট হারিয়ে ৩৫ রান তোলে। গত ইনিংসে ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকানো ভারতীয় ওপেনার মায়াঙ্ক আগারওয়ালকে ফিরতে হয়েছে মাত্র সাত রানেই। কেশব মহারাজের বলে ফাফ দু প্লেসিসের হাতে ক্য়াচ আউট হয়ে যান তিনি।

এরপর এখান থেকে ভারতকে বড় রানের দিশা দেখান রোহিত শর্মা ও চেতেশ্বর পূজারা। রোহিত আবারও শতরান করলেন এদিন। রোহিত এদিন টেস্ট ক্যারিয়ারের পঞ্চম সেঞ্চুরির স্বাদ পেলেন। ১৪৯ বলের ইনিংসে ১০টি চার ও সাতটি ছয়ের সৌজন্যে ১২৭ রান করেছেন।

প্রথম ইনিংসে রোহিতের ব্যাট থেকে এসেছিল ২৪৪ বলে ১৭৬ রান। ৪১ বছরে এই প্রথম সুনীল গাভাস্করের পর দ্বিতীয় ভারতীয় ওপেনার হিসাবে একক টেস্টে ব্যাক-টু ব্যাক সেঞ্চুরি পেলেন হিটম্যানখ্যাত এ ক্রিকেটার। ১৯৭৮-৭৯’তে উইন্ডিজের বিরুদ্ধে এই নজির গড়েছিলেন সাবেক ভারত অধিনায়ক।

এদিন মাত্র ১৯ রানের জন্য পূজারাকে সেঞ্চুরি মাঠে রেখে আসতে হয়। ৮১ রানে ভার্ননের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে যান তিনি। যদিও আউট হওয়ার আগে রোহিতের সঙ্গে যুগলবন্দিতে ভারতের লিড ২৫০ পার করিয়ে দেন। এরপর রবীন্দ্র জাদেজা ৩২ বলে ৪০ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে কাগিসো রাবাদার বলে বোল্ড হয়ে যান। শেষ পর্যন্ত ভারতের ক্যাপ্টেন বিরাট (৩১) ও ভাইস ক্যাপ্টেন আজিঙ্কা রাহানে (২৭) ক্রিজে থেকে ইনিংস ডিক্লেয়ার করে।

খারাপ আলোর জন্য আগেই খেলা শেষের সিদ্ধান্ত নেন আম্পায়াররা। কিন্তু এর মধ্যেই দক্ষিণ আফ্রিকা এক উইকেট হারিয়ে ফেলে ১১ রানের মাথায়। গত ইনিংসের সেঞ্চুরিকারী ডিন এলগার মাত্র ২ রানেই ফিরে যান। প্রোটিয়া ওপেনার এলবিডব্লিউ হয়ে যান জাদেজার বলে। ক্রিজে আছেন এইডেন মার্করাম (৩) ও তিউনিস ডি ব্রুইনা (৫)।