‘শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ে আসে জ্ঞানার্জনের জন্য, লাশ হতে নয়’

‘শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ে আসে জ্ঞানার্জনের জন্য, লাশ হতে নয়’

নিউজডেস্ক২৪: রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বলেছেন, শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ে আসে জ্ঞান অর্জনের জন্য, লাশ হয়ে ফিরে যাওয়ার জন্য নয়। এ সময় তিনি বলেন, কর্তৃপক্ষ সময়মতো সঠিক পদক্ষেপ নিলে বিশ্ববিদ্যালয়ে এমন অপ্রত্যাশিত ঘটনা রোধ করা সম্ভব। তাই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এর দায় একেবারে এড়াতে পারে না।

সোমবার (৯ ডিসেম্বর) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে ৫২তম সমাবর্তনে বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্যের লিখিত বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক ও গবেষকদের হাতে সনদপত্র তুলে দেন তিনি। ৫২তম সমাবর্তন বক্তা ছিলেন জাপানের টোকিও বিশ্ববিদ্যালয়ের কসমিক রে রিসার্চ ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ড. তাকাকি কাজিতা। অনুষ্ঠানে তাকেও সম্মানসূচক ‘ডক্টর অব সাইন্স’ ডিগ্রি দেয়া হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্যের বক্তব্যে প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ বলেন, সম্প্রতি দেশের কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ঘটে যাওয়া অমানবিক ও অনভিপ্রেত ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ও শিক্ষার্থীদের সুনাম ক্ষুণ্ণ হয়েছে। ছাত্রছাত্রীরা লেখাপড়া করে জ্ঞান অর্জনের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়, লাশ হয়ে বা বহিষ্কৃত হয়ে বাড়ি ফিরে যাওয়ার জন্য নয়। আমি আশা করব ভবিষ্যতে কর্তৃপক্ষ সময়মতো সঠিক পদক্ষেপ নেবে।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে প্রেসিডেন্ট বলেন, তোমাদের মা-বাবা অনেক আশা-আকাঙ্ক্ষা নিয়ে তোমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি করেন।

ডাকসু নির্বাচন প্রসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য বলেন, নির্বাচনের নানা ত্রুটির কথা শুনেছি। আশা করি, আগামীতে এ ধরনের ভুল-ত্রুটি আর হবে না।