আজ প্রিন্স হ্যারির সঙ্গে বৈঠক করবেন রানি এলিজাবেথ

আজ প্রিন্স হ্যারির সঙ্গে বৈঠক করবেন রানি এলিজাবেথ

নিউজডেস্ক২৪: প্রিন্স হ্যারি এবং তার স্ত্রী মেগান মার্কেল রাজপরিবারের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নিয়ে কানাডায় চলে যাওয়ার ঘোষণা দেয়ার পর ব্রিটিশ রাজপরিবার এক অভূতপূর্ব সংকটে পড়েছে। এ সংকট সমাধানে জরুরি বৈঠকে বসছেন রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ। আজ সোমবার সান্দ্রিংহাম স্টেটে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

প্রাসাদের কর্মকর্তারা বিবিসিকে জানিয়েছেন, বৈঠকে প্রিন্স হ্যারি, প্রিন্স চার্লস এবং প্রিন্স উইলিয়াম উপস্থিত থাকবেন। মেগান মার্কেল কানাডা থেকে টেলিফোনে বৈঠকে যোগ দেবেন।

গত কয়েকদিন ধরেই এ বিষয়ে আলোচনা হচ্ছে। আলোচনায় ভবিষ্যতে এ দম্পতির অর্থনৈতিক স্বনির্ভরতার বিষয়টি গুরুত্ব পাবে। এছাড়া তাদের নিরাপত্তার বিষয়টিও আসবে। এ বৈঠকের মাধ্যমে সংকটের সমাধান আসবে এমনটা এখনই কেউ বলছেন না। তবে আগামী দিনগুলোতে রাজপরিবার কোনও চুক্তিতে পৌঁছালে তা বাস্তবায়িত হতে কিছুটা সময় লাগবে।

বিবিসির রাজপরিবার বিষয়ক সংবাদদাতা বলছেন, আলোচনার মাধ্যমে সমাধান পেতে এখনও কিছু বড় বাধা রয়েছে। তবে এই দম্পতির সঙ্গে রাজপরিবারের সম্পর্ক এখন কী দাঁড়াবে, সেটা নিয়েই মূলত কথা হবে এখানে। অনেক কঠিন কঠিন বিষয়ের সুরাহা করতে হবে এই বৈঠকে।

প্রসঙ্গত, গত ৮ ডিসেম্বর হ্যারি এবং মেগান ঘোষণা করেন যে তারা রাজপরিবারের সামনের কাতারের দায়িত্ব থেকে অবসর নিতে চান। একই সঙ্গে তারা যুক্তরাজ্য এবং উত্তর আমেরিকায় তাদের সময় ভাগাভাগি করে থাকতে চান। একই সঙ্গে তারা আর্থিকভাবেও স্বাধীন হতে চান, যাতে রাজকোষের অর্থের ওপর তাদের নির্ভর করতে না হয়।

যেরকম আচমকা এই ঘোষণা এসেছে প্রিন্স হ্যারি এবং মেগান মার্কেলের কাছ থেকে, তা রীতিমত হতবাক করে দিয়েছে সবাইকে। তারা এই ঘোষণা দিয়েছিলেন রানি বা রাজপরিবারের কোন সদস্যের সঙ্গে আগাম আলোচনা ছাড়াই। এজন্যেই এ ঘটনা এত তীব্র বিতর্কের সৃষ্টি করে।

প্রিন্স হ্যারির এই সিদ্ধান্তকে অনেকে তুলনা করছেন অষ্টম এডওয়ার্ডের রাজসিংহাসন ত্যাগের সঙ্গে। ব্রিটিশ রাজসিংহাসনের ক্রমতালিকায় অবশ্য প্রিন্স হ্যারির অবস্থান অনেক পেছনে, আট নম্বরে।