307 ট্রলকে ইতিবাচকভাবে নেন জ্যাকুলিন

রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১। ১ কার্তিক ১৪২৮। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

ট্রলকে ইতিবাচকভাবে নেন জ্যাকুলিন

ট্রলকে ইতিবাচকভাবে নেন জ্যাকুলিন

নিউজডেস্ক২৪: সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রায় নিয়মিত ট্রল হন বলিউড তারকা জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজ। তবে এসবে পাত্তা দেন না তিনি, বরং নিতে চেষ্টা করেন ইতিবাচকভাবে। বরং ভাবেন, কেন ট্রল করা হচ্ছে তাঁকে!

সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া ‘ভূত পুলিশ’ ছবিতে অভিনয় করেছেন জ্যাকুলিন। সেই ছবিতে তাঁর সহশিল্পী অর্জুন কাপুর। তাঁরই সঙ্গে এক আলাপন অনুষ্ঠানে বসেছিলেন জ্যাকুলিন। সেখানেই উঠে আসে ট্রলবিষয়ক কথা। ‘বকবক উইথ বাবা’ শিরোনামের এই অনুষ্ঠানে জীবনের নানা বিষয় নিয়ে তাঁর আলাপ হয় অর্জুনের সঙ্গে। সেখানে উঠে আসে তাঁর প্রথম ক্রাশ, ফিটনেস সফর, ট্রল মোকাবিলাসহ নানা কিছু।

‘গুন্ডে’র অভিনেতা অর্জুন ওই আলাপে জ্যাকুলিনের কাছে জানতে চান, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তাঁকে নিয়ে করা খারাপ মন্তব্যগুলোই কি তিনি পড়েন? জ্যাকুলিন বলেছেন, ‘সেখানে নানা বাজে মন্তব্য থাকে। ওগুলো দেখার মধ্য দিয়ে আমি নিজেকেই দেখি। কীভাবে আমি কথা বলি, কতটা জঘন্য কথা বলার রীতি, কীভাবে আমি হিন্দি বলি এবং আমি কী রকম দেখতে—এসব বিষয়ে বাজে মন্তব্য থাকে। আমি অবশ্য এগুলো ইতিবাচক দৃষ্টিতে দেখি। আমি ভাবি, এগুলো বলে তারা কী বোঝাতে চাচ্ছে?’

জ্যাকুলিন আরও বলেন, ‘মাঝেমধ্যে মনে হয়, আমার সম্ভবত উন্নতির সুযোগ আছে। কিছু কিছু সমালোচনা দেখে মনে হবে, মন্তব্যকারী আসলে জঘন্য লোক। আবার কিছু কিছু মন্তব্য অত্যন্ত অর্থবহ।’

প্রথম কার প্রেমে পড়েছিলেন জ্যাকুলিন? এ প্রশ্নে তিনি ফিরে যান তাঁর ছেলেবেলায়। ‘স্কুলে একটা ছেলে ছিল। তার নামটা এখন মনে করতে পারছি না। এ ছাড়া লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও আমার মারাত্মক ক্রাশ। তাঁর অভিনীত “রোমিও অ্যান্ড জুলিয়েট”, “টাইটানিক” দেখার পর তাঁর প্রেমে পড়ে যাই।’ তবে একটা ব্যাপার জ্যাকুলিনের জীবনে কখনোই ঘটেনি। সেটা হলো ‘অন্ধ প্রেম’।

২০০৮ সালে বলিউডে যাত্রা শুরু জ্যাকুলিনের। ছবির নাম ‘আলাদিন’। এরপর বলিউডে দীর্ঘ পথচলা, অভিনয় করেছেন জনপ্রিয় সব ছবিতে। শুধু সিনেমা নয়, মিউজিক ভিডিওর জন্যও তিনি আলোচিত হন। এই মুহূর্তে জ্যাকুলিনের হাতে রয়েছে অনেকগুলো ছবি। ‘অ্যাটাক’, ‘বিক্রান্ত রোনা’, ‘সার্কাস’, ‘হরি সারা ভিরা মাল্লু’, ‘বচ্চন পান্ডে’ ও ‘রাম সেতু’ ছবিগুলোতে দেখা যাবে তাঁকে।