‘আমি সিনেমায় সফল, জনপ্রতিনিধি হবার দরকার নেই’

‘আমি সিনেমায় সফল, জনপ্রতিনিধি হবার দরকার নেই’

নিউজডেস্ক২৪: দেশের রাজনীতি সম্পর্কে অবশ্যই মতামত রয়েছে অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াতের, কিন্তু নিজের জীবিকা হিসেবে রাজনীতির মঞ্চকে ব্যবহারের কথা একেবারেই ভাবেন না তিনি।

বুধবার (০৮ আগস্ট) সন্ধ্যায় যোগি সধুগুরুর সাথে তার কথোপকথনে কঙ্গনা বিভিন্ন বিষয় নিয়েই আলোচনা শুরু করেন।

এক সাংবাদিক যখন তাকে জিজ্ঞাসা করেন যে তিনি ভবিষ্যতে রাজনীতিতে যোগ দিতে চলেছেন কি না, তখন কঙ্গনা সাংবাদিকদের বলেন, রাজনীতি কখনও জীবিকা হওয়া উচিত নয়। আমার মতে কেউ যদি রাজনীতিতে যোগ দিতে চায়, তাহলে প্রথমেই তাকে সব কিছু থেকে নিজেকে আলাদা করে নিতে হবে।

৩১ বছর বয়সী এই অভিনেত্রীর কথায়, একজন তার পরিবার, বাড়ি এবং সন্তান সমস্ত ভুলে তবেই দেশের জন্য নিজের সেরাটা দিতে পারবেন। এখন আমি নিজের জীবিকায় যথেষ্ট সফল তাই আমি অন্য কোথাও কর্মজীবন তৈরি করতে চাই না। কিন্তু যদি আমি চাই দেশের জন্য কিছু করতে তাহলে আমাকে অন্য সব থেকেই সরে আসতে হবে। অন্য কিছুতে আগ্রহ রেখে তারপর দেশের কাজ, সম্ভব নয়।

তিনি আরও বলেন, যদি রাজনীতির দিকে অগ্রসর হতে হয় তবে ত্যাগের মাধ্যমেই তা সম্ভব।

গত সপ্তাহে, তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর শৈশবের উপর ভিত্তি করে একটি চলচ্চিত্রের স্ক্রিনিংয়ে যোগ দেন। সেখানে মোদীর ভূয়সী প্রসংশা করে কঙ্গনা বলেন, এই মুহূর্তে মোদীই আমাদের দেশের সঠিক নির্বাচিত নেতা।

বলিউড কেন বিভিন্ন রাজনৈতিক বিষয়ে চুপ থাকে তা নিয়ে সমালোচনাও করেন কঙ্গনা। বলেন, শিল্পীরা সর্বদা বলেন যে আমাদের রাজনীতির কথা বলা উচিত নয় কারণ তাতে আমরাই বিপদে পড়ে যাই কিন্তু একজন সফল মানুষ যাকে সর্বদা ২৫টা ক্যামেরা এবং মিডিয়ার মানুষ ঘিরে রাখেন তারা রাজনীতি নিয়ে কথা না বললে আর কারা বলবেন?

তিনি বলেন, কেন আপনি সফল? সাফল্যর কী অর্থ আপনার কাছে? শুধু অর্থ উপার্জন, খাওয়া এবং মজা করা? আপনাকে তো নিজের ছোট্ট ঘরে নিজের মতো সুখে থাকার কথা বলা হয়নি। মানুষ আপনাকে নির্বাচন করেছেন যাতে আপনি তাদের কথা ভাবেন।