ঢাকা, রোববার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ০৮ আশ্বিন ১৪২৫ | ১২ মহররম ১৪৪০

ভারতীয় কোম্পানিতে প্রথম বিনিয়োগ করতে যাচ্ছেন ওয়ারেন বাফেট

ভারতীয় কোম্পানিতে প্রথম বিনিয়োগ করতে যাচ্ছেন ওয়ারেন বাফেট

নিউজডেস্ক২৪: প্রথম কোনও ভারতীয় প্রতিষ্ঠানে বিনিয়োগ করতে যাচ্ছেন মার্কিন ধনকুবের ওয়ারেন বাফেট। ঘনিষ্ঠ একটি সূত্রের বরাত দিয়ে সিএনএন জানিয়েছে, বাফেটের প্রতিষ্ঠান বার্কশায়ার হ্যাথাওয়ে (বিআরকেএ) ভারতের শীর্ষ মোবাইল লেনদেন প্রতিষ্ঠান পেটিএম-এ বিনিয়োগ করবে।

সূত্রটি জানায়, বেশ কয়েক মাস ধরেই আড়াই হাজার কোটি রুপি (৩৬ কোটি ডলার) বিনিয়োগের ব্যাপারে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছিল কোম্পানি দুটি। এর ফলে পেটিএম-এর আর্থিক মূল্য দাঁড়াবে প্রায় এক হাজার কোটি ডলার। সূত্রটি আরও জানিয়েছে, এ সপ্তাহেই এই চুক্তির বিষয়ে ঘোষণা আসতে পারে।

এই চুক্তির ব্যাপারে মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে পেটিএম। তবে বার্কশায়ার হ্যাথাওয়ে জানিয়েছে, অফিস সময়ের বাইরে তারা কোনও মন্তব্য করবে না। এই চুক্তির বিষয়ে প্রথম খবর প্রকাশ করে ভারতীয় পত্রিকা মিন্ট।

ভারতের বাজারে বাফেটের এটিই প্রথম বিনিয়োগ হলেও ইতোমধ্যে সিলিকন ভ্যালির প্রভাবশালী কয়েকটি কোম্পানি সেখানে নিজের অবস্থান তৈরির চেষ্টা করছে।

গত বছর মোবাইলে লেনদেনের জন্য ভারতে টেজ নামের একটি অ্যাপ চালু করে গুগল। এছাড়া ফেসবুকের মালিকানাধীন মোবাইল ম্যাসেঞ্জার হোয়াটসঅ্যাপও একই ধরনের সেবার পরীক্ষা চালাচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান গার্টনারের একজন গবেষণা পরিচালক ডিডি মিশ্র বলেন, এই বাজারের অনেক আকর্ষণ রয়েছে। তিনি বলেন, এই বাজার এখন খুবই প্রতিযোগিতাপূর্ণ হয়ে উঠবে। তাই দীর্ঘ দিন ব্যবসায় টিকে থাকতে হলে প্রচুর অর্থের প্রয়োজন।

ভারতীয়রা এখনও নগদ অর্থে ব্যবসা করতে পছন্দ করেন। তাই দেশটির অধিকাংশ মানুষই লেনদেন রুপি এবং কয়েনের মাধ্যমে করে থাকেন। কিন্তু ২০১৬ সালের নভেম্বরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ৮৬ ভাগ নগদ মুদ্রা নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত নিলে পেটিএম-এর মতো অনলাইন ওয়ালেটগুলোর পালে হাওয়া লাগে। ফলে এক মাসের মধ্যে পেটিএম-এ নতুন এক কোটি গ্রাহক যোগ হয়।

৩০ কোটির বেশি গ্রাহক নিয়ে ভারতে মোবাইল লেনদেনের শীর্ষে থাকা পেটিএম অ্যামাজন এবং ফ্লিপকার্টকে টেক্কা দিতে অনলাইন শপিং পেটিএম মলও খুলেছে।

গবেষণা প্রতিষ্ঠান ফিচ সলিউশনের একজন বিশ্লেষক কেনি লিউ বলছেন, ভারতের তরুণ জনগোষ্ঠী হাতে খরচের মতো প্রচুর টাকা রয়েছে যা মোবাইল লেনদেন ও অনলাইন শপিংয়ের জন্য সম্ভাবনাময় একটি বাজার। এর আগে গেল বছর ভারতীয় একটি চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে দেশটির বাজারকে ‘অবিশ্বাস্য’ সম্ভাবনাময় বলে উল্লেখ করেছিলেন বাফেট। তিনি বলেন, যদি আপনি আমাকে দারুণ একটি ভারতীয় কোম্পানি বিক্রির খবর দেন তাহলে আমি কালও সেখানে চলে আসবো।

চীনের টেক জায়ান্ট আলিবাবা এবং জাপানিজ সফটব্যাংক (এসএফটিবিএফ)ওপেটিএম-এ বিনিয়োগ করেছে।

ইন্ডিয়ান স্কুল অব বিজনেসের ফিন্যান্সের একজন অধ্যাপক বৈদ্যনাথন কৃষ্ণমূর্তি বলেছেন, বাফেট যেহেতু একজন মৌলিক বিনিয়োগকারী এবং তার বিনিয়োগ কমপক্ষে দশ বছরের জন্য হয়ে থাকে, তাই দ্ব্যর্থহীনভাবে বলা যায় বাজারে দীর্ঘদিনই দাপিয়ে বেড়াবে পেটিএম।

তিনি বলেন, বাফেট যে ভারতীয় টেক কোম্পানিতে বিনিয়োগ করছেন সেটি সব ভারতীয় টেক স্টার্টআপদের জন্য একটি বড় মুহূর্ত।